October 3, 2022

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের শুরু থেকেই লাগাম পাওয়া মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে আর্ন্তজাতিক বাজারে তেলের দামের। আরও একধাপ বেড়ে ব্যালে প্রতি জ্বালানি তেলের দাম ১২০ ডলারের কাছাকাছি পৌঁছেছে।

বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ৪ শতাংশ বেড়ে প্রতি ব্যারেল তেল বিক্রি হচ্ছে যথাক্রমে, ব্রেন্ট অপরিশোধিত তেল প্রায় ১১৮ ডলার ছাড়িয়েছে এবং ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ১১৪ ডলার। ৯ বছরের মধ্যে রের্কড পরিমাণ মুল্যে বিক্রি হচ্ছে ব্রেন্ট তেল। আর ১১ বছরের মধ্যে রের্কড পরিমাণ মুল্যে বিক্রি হচ্ছে ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের দাম।

ইউক্রেনে হামলার কারণে রাশিয়ার ওপর নানা নিষেধাজ্ঞার কারণে বিশ্ববাজারে তেলের সরবরাহে তীব্র সংকট দেখা দেয়ায় দাম বাড়ছে। অন্যদিকে এ পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের অপরিশোধিত তেলের মজুত বহু বছরের সর্বনিম্নে নেমে গেছে বলে বলছেন রয়টার্স।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ব্রেন্ট ক্রুড ফিউচার প্রতি ব্যারেল ১১৮ ডলার ২২ সেন্টে পৌঁছেছে, যা ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারির পর সর্বোচ্চ।

আর ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ক্রুড ওয়েল প্রতি ব্যারেল ১১৪ ডলার ৭০ সেন্টে বিক্রি হচ্ছে। এই দর ১১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলা শুরুর পর এক লাফে ব্রেন্ট ক্রুড ওয়েলের দাম ১০০ ডলার ছাড়িয়ে যায়। ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ওয়েলের দর প্রায় ১০০ ডলারে পৌঁছে।

সৌদি আরবের পর সবচেয়ে বেশি জ্বালানি তেল রপ্তানি করে রাশিয়া। বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারির শুরু থেকেই চাপের মধ্যে ছিল বৈশ্বিক জ্বালানি বাজার। সংকট কাটিয়ে উঠতে চাহিদার সঙ্গে জোগান দেওয়া সম্ভব হচ্ছিল না।

সৌদি আরবের নেতৃত্বে ওপেক জোট উৎপাদন বাড়িয়ে সংকট কাটানোর চেষ্টা করছে, তবে চাহিদার তুলনায় পর্যাপ্ত সরবরাহ না থাকায় জ্বালানি তেলের বাজার যে অস্থির হয়ে উঠবে, তা আগেই বোঝা যাচ্ছিল। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ সেই ‘আগুনে ঘি ঢেলেছে’।

বার্তাবাজার / না. সা.

Leave a Reply

Your email address will not be published.